ঢাকা বাণিজ্যমেলায় একটি কিনে দশটি ফ্রি নামে মিথ্যা প্রতারণা | ২৪ ঘন্টা নিউজ

ঢাকা বাণিজ্যমেলায় একটি কিনে দশটি ফ্রি নামে মিথ্যা প্রতারণা | ২৪ ঘন্টা নিউজ

‘যে কোনো পণ্য কিনলে ১০ থেকে ৩০ শতাংশ ছাড়! আবার একটি পণ্য কিনলে ১০টি, কোথাও ২০টি পণ্য ফ্রি! পণ্য ভেদে দেওয়া হবে ৫ থেকে ৮ বছরের ওয়ারেন্টি, গ্যারান্টি অথবা রিপ্লেসমেন্ট ওয়ারেন্টি ।’

এমন বিভিন্ন লোভনিয় অফার দিয়ে পণ্য বিক্রির জাল পেতেছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার কিছু প্রতারক চক্র। বিক্রি বাড়াতে অফারের নামে তারা ক্রেতাদের সঙ্গে করছেন প্রতারণা। আর অসচেতন ক্রেতারাও না বুঝে এসব পণ্যের দিকে ঝুকছেন। কেউ কেউ পণ্যগুলো কিনে হচ্ছেন প্রতারিত।

বেশ কয়েকদিন মেলা প্রাঙ্গন ঘুরে দেখা গেছে, কিছু কিছু স্টল মালিক ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে বিভিন্ন ধরনের অফার দিচ্ছেন। কেউ দিচ্ছেন ইলেকট্রিক ওভেন এর সঙ্গে বিশেষ অফার, কেউ টিভি, ওয়াশিং মেশিন অথবা ইলেকট্রিক চুলার সঙ্গে। তবে প্রতিটি অফারের আড়ালে রয়েছে কৌশলী প্রতারণা।

এরশাদুল ইসলাম অপু। থাকেন মোহাম্মদপুরে। মেলার ১৫তম দিনে বাসার প্রয়োজনীয় কিছু কোকারিজ পণ্য কিনতে স্ত্রীসহ বাণিজ্য মেলায় এসেছিলেন। দুজনই অনেকক্ষণ বিভিন্ন দোকানে দাম দর যাচাই করেন। সব শেষে তারা একটি কোকারিজ পণ্যের স্টলে যান। বিক্রেতারা তাদেরকে বিভিন্ন কোকারিজ পণ্য দেখান। পরবর্তীতে একটা ওভেন দেখেন, যেটার মূল্য দেওয়া আছে ৩৬ হাজার ৫০০ টাকা। মিয়াকো কোম্পানির লোগ লাগানো এই ওভেনটি কিনলে আরও ১০টা পণ্য এর সঙ্গে ফ্রি দেওয়া হবে। অথবা ১০টি পণ্যের মধ্যে যেকোনো দুইটি পণ্যের পরিবর্তে একটি এলইডি টেলিভশন দেওয়া হবে।

মিয়াকোর মতো ইন্টারন্যাশলনাল কোম্পানির এতগুলো জিনিস ফ্রি দেওয়ার অফার দেখে এরশাদুল অপুর স্ত্রী বিচলিত হয়ে ওঠেন। এটা কি করে সম্ভব! বিক্রেতারা তাদের আশ্বস্ত করেন এটা মিয়াকোরই পণ্য।

তারা আরও জানায়, টেলিভিশনে বা অন্যান্য জায়গায় প্রচার করলে বিজ্ঞাপনের জন্য অনেক অর্থ খরচ হতো। ক্রেতারা যদি পণ্যটি সরাসরি স্টেল থেকে কিনে নেন তবে প্রচারের টাকাটাই তারা ফ্রি দেন। মজার বিষয় হচ্ছে- এসব পণ্যের সঙ্গে এক থেকে ৮ বছরের ওয়ারেন্টিও দেওয়া হবে বলে জানানো হচ্ছে। কোনো সমস্যা হলে প্রতিষ্ঠানটি রিপ্লেসমেন্টের সুবিধাও দেওয়ার অফার দেয়। একপর্যায়ে ওই দম্পত্তি একটি অফার নিয়ে নেন। পণ্যের সঙ্গে ওয়ারেন্টি কার্ড ও হোম ডেলিভারীও দেন প্রতিষ্ঠানটি।

কিন্তু পণ্যগুলো বুঝে পাবার পর তাদের মনে পণ্যের মান নিয়ে সন্দেহ সৃষ্টি হয়। এরপরের দিন তারা মেলার বাইরে বিভিন্ন মার্কেটে গিয়ে পণ্যগুলোর দাম ও মান নিয়ে যাচাই শুরু করেন। ঠিক সে সময়ই জানতে পারেন যে, তাদের সঙ্গে প্রতারণরা করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.