কয়েদির মৃত্যু

পটিয়া প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রামের পটিয়ায় বুধবার দুই মেয়েকে গলাটিপে হত্যার পর বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করা সেই বাবা মোখেন্দু বড়ুয়ার (৫৬) মৃত্যু হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আজ বৃহস্পতিবার (২ জুলাউ) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মোকেন্দু বড়ুয়ার মৃত্যু হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পটিয়া থানার ওসি বোরহান উদ্দিন। তিনি ২৪ ঘণ্টা নিউজ কে জানান, বিষপান করা সেই বাবা চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

বুধবার সকালে অচেতন অবস্থায় মুকুন্দ বড়ুয়াকে উদ্ধার করে প্রথমে পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ব অবস্থার অবনতি দেখে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার গভীর রাত থেকে বুধবার ভোরের কোনো একসময় চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার কাশিয়াইশ ইউনিয়নের ভাণ্ডারগাঁও গ্রামে দুই মেয়ে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী শশি বড়ুয়া ওরফে টুকু বড়ুয়া (১৪) এবং পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী নিশু বড়ুয়া (১১) কে গলা টিপে হত্যার পর বিষপান করেন মৌলভীবাজারের শাক্যপদ বড়ুয়ার ছেলে মোখেন্দু বড়ুয়া।

স্থানীয়রা বলেছে, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে মাস দুয়েক আগে চাকরি হারান মোখেন্দু। এতে চরম অর্থকষ্টে পড়েন তিনি। হতাশা থেকে তিনি এই ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারেন। পাঁচ বছর আগে ক্যান্সারে স্ত্রী কণিকা বড়ুয়ার মৃত্যুর পর থেকে শ্বশুরবাড়িতেই সন্তানদের নিয়ে থাকতেন মোখেন্দু।

২৪ ঘণ্টা/এম আর/সনজয়