মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। চলতি বছরের অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনার কারণে তা স্থগিত হয়ে যায়।

বিজ্ঞাপন

সোমবার আইসিসির ভার্চুয়াল বোর্ড মিটিংয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বিশ্বে মহামারী আকার ধারণ করা ছোঁয়াচে ভাইরাস করোনার কারণে অলিম্পিক গেমসসহ বিভিন্ন টুর্নামেন্ট স্থগিত হয়ে যায়।

তবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ স্থগিত হওয়ায় সুবিধা হয়েছে ভারতীয় কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই)। আইপিএল আয়োজনে তাদের আর কোনো সমস্যা থাকল না। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলেও ভারতের পরিবর্তে সংযুক্ত আরব আমিরতে সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বরের মধ্যে আইপিএল অনুষ্ঠিত হতে পারে।

আইপিএল না হলে প্রায় চার হাজার কোটি টাকা রাজস্ব হারাতো ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড।

গত বছর আইপিএলের ব্রান্ড ভেল্যু ছিল ৬.৭ বিলিয়ন। স্টার স্পোর্টস ২০২২ সাল পর্যন্ত পাঁচ বছরের জন্য ২২০ মিলিয়ন ডলারে ভারতীয় ক্রিকেটের টিভি স্বত্ব কিনে নেয়। ২০২০ সাল পর্যন্ত তাদের টার্গেট ছিল ৪০০ মিলিয়ন ডলার উপার্জনের। আইপিএল না হলে মিডিয়ারাইটস থেকেও চুক্তি অনুসারে অর্থ পাবে না বিসিসিআই।

প্রসঙ্গত, এবারের আইপিএল শুরু হওয়ার কথা ছিল ২৯ মার্চ। কিন্তু মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত তা পিছিয়ে দেয়া হয়। বিসিসিআই চাচ্ছে সেপ্টেম্বর-নভেম্বরে আরব আমিরাতে আইপিএল আয়োজন করতে।

২৪ ঘণ্টা/এম আর