যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরেছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) দিবাগত রাত ২টার দিকে কাতার এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন তিনি।

বিমানবন্দরে সাকিবকে স্বাগত জানাতে তার ভক্ত-সমর্থকরা জড়ো হন। বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর তিনি গণমাধ্যমে কথাও বলেন।

গত ২৯ অক্টোবর নিষেধাজ্ঞামুক্ত হয়েছেন সাকিব আল হাসান। বাজিকরদের কাছ থেকে অফার পেয়ে তা গ্রহণ না করলেও, সেটা নিজ বোর্ড কিংবা আইসিসির কাছে না জানানোর অপরাধে এক বছরের নিষেধাজ্ঞা ভোগ করতে হয়েছে চ্যাম্পিয়ন অলরাউন্ডারকে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দেশে ফিরে বিসিবির প্রস্তাবিত টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে খেলবেন সাকিব। এর আগে তার টিমের অনুশীলনেও অংশ নেবেন।

গত সোমবার সাকিবের এক ঘনিষ্ঠ সূত্র নিশ্চিত করেছে, দেশে ফিরে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের জন্য প্রস্তুতি শুরু করবেন। যতদূর জানা গেছে, সেটা বিকেএসপিতে নয় বরং দেশের হোম অব ক্রিকেটে।

তার মানে নভেম্বরের ১০ তারিখের মধ্যেই হয়তো শেরেবাংলায় ব্যাট ও বল হাতে অনুশীলনে দেখা মিলবে সাকিবের। তারপর চলতি মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে যে পাঁচ দলকে নিয়ে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট হবে, সেখানেও খেলবেন সাকিব। বলার অপেক্ষা রাখে না, প্লেয়ার্স ড্রাফট হলে সাকিবকে পেতেই আগ্রহী হবে সব দল।

একবছর পর আবার মাঠে ফেরা মুক্ত সাকিবকে দলে ভেড়াতে রীতিমতো প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে যাবে। প্লেয়ার্স ড্রাফট হলে সাকিবই হবেন সব দলের ফার্স্ট চয়েজ। তাকে নিয়ে নিশ্চিতভাবেই কাড়াকাড়ি পড়ে যাবে এবং এটা সত্য যে, টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে সাকিব আছেন বলেই শেষ পর্যন্ত এটা করপোরেট লিগ হতে যাচ্ছে। মাঠে ফেরা সাকিব হতে পারেন যেকোনো দলের জন্য বড় সম্পদ।

এদিকে গত ২৯ অক্টোবর নিষেধাজ্ঞামুক্ত হওয়ার পর প্রথম র‍্যাংকিং আপডেটেই নিজের শীর্ষস্থান ফিরে পেয়েছেন সাকিব আল হাসান। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর চেয়ে ৭২ রেটিং পয়েন্টে এগিয়ে রয়েছেন এই বাঁহাতি স্পিনিং অলরাউন্ডার।

বুধবার দুপুরে সবশেষ হালনাগাদকৃত ওয়ানডে র‍্যাংকিং প্রকাশ করেছে আইসিসি। যেখানে শীর্ষ তিন স্থানে কোনো পরিবর্তন আসেনি। নিষেধাজ্ঞার আগে শীর্ষে ছিলেন সাকিব, এখনও তাই আছেন। তবে রেটিং খানিক কমে হয়েছে ৩৭৩, তবু দ্বিতীয় স্থানে থাকা মোহাম্মদ নাবীর চেয়ে ৭২ রেটিং এগিয়ে রয়েছেন তিনি।

তৃতীয় স্থানে রয়েছেন ইংল্যান্ডের পেস বোলিং অলরাউন্ডার ক্রিস ওকস। এছাড়া র‍্যাংকিংয়ে নিজেদের মধ্যে জায়গা অদল-বদল করেছেন বেন স্টোকস (৪) ও ইমাদ ওয়াসিম (৫)। পরের চারটি অবস্থান আবার রয়েছে অপরিবর্তিত। এক ধাপ এগিয়ে সেরা চারে ঢুকেছেন জিম্বাবুয়ে শন উইলিয়ামস।

আইসিসি ওয়ানডে র‍্যাংকিং (৪ নভেম্বর ২০২০ আপডেট)

১. সাকিব আল হাসান (বাংলাদেশ) – ৩৭৩ রেটিং
২. মোহাম্মদ নাবী (আফগানিস্তান) – ৩০১ রেটিং
৩. ক্রিস ওকস (ইংল্যান্ড) – ২৮১ রেটিং
৪. বেন স্টোকস (ইংল্যান্ড) – ২৭৬ রেটিং
৫. ইমাদ ওয়াসিম (পাকিস্তান) – ২৭১ রেটিং
৬. কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম (নিউজিল্যান্ড) – ২৬৫ রেটিং
৭. রশিদ খান (আফগানিস্তান) – ২৫৩ রেটিং
৮. মিচেল স্যান্টনার (নিউজিল্যান্ড) – ২৫১ রেটিং
৯. রবীন্দ্র জাদেজা (ভারত) – ২৪৬ রেটিং
১০. শন উইলিয়ামস (জিম্বাবুয়ে) – ২৩৮ রেটিং

২৪ ঘণ্টা/রিহাম