চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ও চসিক মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, ঢাকা ১৮ ও সিরাজগঞ্জ ১ আসনের উপনির্বাচনের ভোট কারচুপি ও ভোট ডাকাতি ধামাচাপা দিতে আওয়ামী সন্ত্রাসী বাহিনী বাসে আগুন দিয়েছে। এই সরকার জনগণের সরকার নয়। তারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয় বলে জনগণের ভোটের অধিকার কেড়ে নিচ্ছে। এই সরকারের অধীনে কোন ভোট সুষ্ঠু হবে না। এই সরকার একদলীয় কায়দায় ভোট কেন্দ্র দখল ও ভোটের ফলাফল আগে থেকেই তৈরি করে তা ঘোষণা করে।

বিজ্ঞাপন

তিনি আজ নগরীর ৮ নং শুলকবহর ওয়ার্ডে করোনা সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ডা. শাহাদাত হোসেন আরো বলেন,
বর্তমান নির্বাচন কমিশন একটি নির্লজ্জ কমিশনে এ পরিণত হয়েছে।নির্বাচনে জনগণের রায় আর গণতন্ত্রের প্রতিফলন হয়, কিন্তু এই সরকারের অধীনে নির্বাচনে জনগণের ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র হরণ হয়।

প্রধান বক্তার বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুর হাশেম বক্কর বলেন, দেশের মানুষের বাক স্বাধীনতা নেই, গণতন্ত্র নেই, ভোটের অধিকার নেই, আছে শুধু স্বৈরতন্ত্র। দেশে আইনের শাসন নেই, ফ্যাসিস্ট কায়দায় এই সরকার জনগণের সব অধিকার কেড়ে নিচ্ছে। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে রাজপথে নামতে হবে।

৮ নং শুলকবহর ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি কাজী শামসুল আলমের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক ও কাউন্সিলর প্রার্থী হাসান ওসমান এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি আশরাফ উদ্দিন চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক কাজী বেলাল উদ্দিন, আব্দুল হালিম শাহ আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, থানা বিএনপির সভাপতি মামুনুল ইসলাম হুমায়ুন।

বক্তব্য রাখেন বিএনপি নেতা তোফাজ্জল হোসেন, আব্দুল হাই, রাহালা জামান , শহিদুল আলম খসরু, আক্তার হোসেন লেদু, মোঃ জাকির হোসেন, দিদারুল আলম, মোহাম্মদ হাসান, নিজাম আহমেদ, এম এ মান্নান, জসীম উদ্দীন, জয়নাল আবেদীন, মোহাম্মদ মুসা , ইকবাল পারভেজ, জিয়াউর রহমান জিয়া, শাহি ইমরান রমজান, শহিদুল ইসলাম রানা, মোহাম্মদ হাসান, পাঁচলাইশ থানা মহিলাদলের সভানেত্রী সাইমা হক, সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর প্রার্থী জিন্নাতুন্নেসা জিনিয়া প্রমুখ।

২৪ ঘণ্টা/রিহাম