চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশেনের প্রশাসক আলহাজ্ব মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন বলেছেন, নগরবাসীর সন্তানদের শিক্ষার সংকট দূর করে সুশিক্ষিত করার লক্ষ্যে কর্পোরেশন অন্যান্য সেবা কার্যক্রমের পাশাপাশি শিক্ষা-স্বাস্থ্য খাতে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে বরাদ্দ অব্যাহত রেখেছে। কাজেই এই দুই খাতে কোন অবহেলা কাম্য নয়। সুলভে শিক্ষা ও চিকিৎসাসেবা প্রদানে কর্পোরেশনে কর্মরত চিকিৎসক ও শিক্ষক সমাজকে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে।

বিজ্ঞাপন

তিনি আজ সকালে ৪০নং পতেঙ্গা মহিলা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে কাম সাইক্লোন সেল্টারের নুতন ভবনের নির্মাণ কাজ পরিদশনকালে একথা বলেন।

এ সময় সাবেক কাউন্সিলর হাজী জয়নাল আবেদীন, শাহানুর বেগম, প্রশাসকের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম, নির্বাহী প্রকৌশলী অসীম বড়–য়া, সহকারী প্রকৌশলী আশ্রাফুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জাইকার অর্থায়নে পতেঙ্গা মহিলা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে কাম সাইক্লোন সেল্টারের প্রকল্প ব্যয় ধরা হয়েছে ২০ কোটি ৬৫ লাখ টাকা। প্রকল্পের অধীনে ৬ তলা বিশিষ্ট দু’টি ভবন নির্মাণ করা হবে। দুই ভবনের প্রতি তলা হবে ২০ হাজার বর্গফুট।

বর্তমানে প্রকল্পের ৫৫ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সামনের বছরের ৩০ এপ্রিল এই কাজ সম্পূর্ণ শেষ হবে।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন আরো বলেন, শিক্ষক সমাজ হলো মানুষ গড়ার কারিগর। আমার প্রত্যাশা থাকবে কর্পোরেশনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষকরা আন্তরিকভাবে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করবে। কারণ এর উপর শিক্ষার্থীদের ভাল ফলাফল অর্জন ও সুনাগরিক হয়ে গড়ে ওঠা নির্ভর করছে।

প্রশাসক জাইকার কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আপনারা আমাদের সকল উন্নয়ন কাজের অংশীদার। পতেঙ্গা ওয়ার্ডের মহিলা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে কাম সাইক্লোন সেল্টার নির্মাণ সম্পন্ন হলে এই উপকূলীয় অঞ্চলের অধিবাসীরা ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছাস, বন্যার মত প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা পাবে বলে আশা করা যায়।