এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক অর্থপাচারকারী প্রশান্ত কুমার ওরফে পিকে হালদারের বান্ধবী অবন্তিকা বড়ালকে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক।

বিজ্ঞাপন

অবন্তিকা বড়ালকে গ্রেফতার করা হয় বুধবার দুপুরে। দুদকের উপ-পরিচালক মো. সালাউদ্দিনের নেতৃত্বে একটি দল ধানমন্ডি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। এরপর তাকে দুদক কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। পিকে হালদারের বিরুদ্ধে ২৭৫ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। এর আগে দুই দফায় অবন্তিকাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করা হলেও আসেনি তিনি। পিকে হালদার ধানমণ্ডিতে তাকে তিন কোটি টাকার একটি বাড়ি কিনে দিয়েছে।

সম্প্রতি দুদক আইনজীবী জানিয়েছেন, পিকে হালদার ৭০ থেকে ৮০ জন বান্ধবীর অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠিয়েছেন। এরআগে, গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর তাঁর স্থাবর সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ দেয়া হয়। পলাতক আসামি পিকে হালদারের বিরুদ্ধে শুক্রবার রেড নোটিশ জারি করে ইন্টারপোল। বাংলাদেশ পুলিশের ন্যাশনাল সেন্ট্রাল ব্যুরো-এনসিবি অর্থাৎ ইন্টারপোলের ঢাকা শাখার অনুরোধে ইন্টারপোল এ রেড নোটিশ জারি করা হয়।

এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও ইন্টারন্যাশনাল লিজিং কোম্পানির সাবেক এমডি প্রশান্ত কুমার হালদার বা পি কে হালদারের বিরুদ্ধে চারটি বেসরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচারের অভিযোগ রয়েছে। ২০২০ সালের শুরুতেই বিদেশ পালিয়ে যাওয়ার পর ২৭৪ কোটি ৯১ লাখ ৫৫ হাজার ২৫৫ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে পিকে হালদারের বিরুদ্ধে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক।