বিজ্ঞানমনস্ক লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায়কে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় বরখাস্ত মেজর জিয়াউল হকসহ ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) এ রায় ঘোষণা করা হয়। রায়ে একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে গত ৪ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমান রায়ের দিন ১৬ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, রাষ্ট্রপক্ষে ২৮ জন সাক্ষী আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন তিন আসামি। ২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির কাছে চাপাতির কোপে ব্লগার ও লেখক অভিজিৎ রায় নিহত হন। এ সময় তার স্ত্রী রাফিদা আহমেদ আহত হন।

অভিজিৎ ও রাফিদা যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক। অমর একুশে গ্রন্থমেলা উপলক্ষে তারা দেশে এসেছিলেন। মেলা থেকে বেরিয়ে বাসায় ফেরার পথে তারা ওই হামলার শিকার হন। এ ঘটনায় অভিজিৎ রায়ের বাবা অজয় রায় শাহবাগ থানায় হত্যা মামলা করেন।

পরে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট মামলা তদন্ত করে ২০১৯ সালের ১৩ মার্চ অভিযোগপত্র দাখিল করে।