২৪ ঘণ্টা ডট নিউজ : করোনাভাইরাস মহামারীতে অসাধারণ উদ্যোগ ও অসামান্য অবদান রাখায় চট্টগ্রামে ৮ ব্যক্তি ও ১০টি সংগঠন ও ২টি প্রতিষ্ঠানকে ‘কোভিড হিরো’স অব চট্টগ্রাম’ সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) নগরীর পেনিনসুলা হােটেলের ডালিয়া হলে ‘গ্র্যান্ড লাইফ এক্সপাে-২০২১’ অনুষ্ঠানে এই সম্মাননা প্রদান করা হয়।

চট্টগ্রামের তরুণ উদ্যোক্তাদের আয়ােজনে ১৯, ২০ ও ২১ ফেব্রুয়ারি তিন দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন নবনির্বাচিত সিটি মেয়র এম রেজাউল করিম চৌধুরী।

বিএফইউজে’র নির্বাহী সদস্য সাংবাদিক নেতা আজহার মাহমুদের সভাপতিত্বে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ও উদ্বোধক মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, ‘আজকের এই অনুষ্ঠানে প্রবেশ করেই আমার মন উৎফুল্ল হয়েছে। আজকের এই অনুষ্ঠানের আয়োজকদের আমি ধন্যবাদ জানাই, কারণ তারা কোভিড হিরোদের সংবর্ধিত করছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘পশুর ঘরে জন্মগ্রহণ করলেই পশু হওয়া যায়। কিন্তু মানুষের ঘরে জন্মগ্রহণ করলেই মানুষ হওয়া যায় না। মানুষ হওয়ার জন্য মানবিকতা ও মনুষ্যত্ব থাকতে হয়, অর্জন করতে হয়। আমি আশা করবো এই সৃজনশীল ও মানবিক মানুষেরা আরও এগিয়ে যাবেন।’

চট্টগ্রাম ফিল্ড হাসপাতালের উদ্যোক্তা ও সিইও ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া বলেন, ‘ফিল্ড হাসপাতাল ছোট একটা স্বপ্ন ছিল। কিন্তু এখন এই হাসপাতাল এখন অনেক বড় হয়েছে, চট্টগ্রামবাসীর হাসপাতাল হয়েছে। এই হাসপাতাল আমার একার নয়, এর সাথে অনেক নিবেদিত প্রাণ মানুষেরা যুক্ত আছেন। আমি তাদের প্রতিনিধিত্ব করেছি মাত্র।’

অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্যে একুশে পত্রিকা সম্পাদক ও চট্টগ্রাম ফিল্ড হাসপাতালের উদ্যোক্তা আজাদ তালুকদার বলেন, ‘আমি বরাবরই বিখ্যাত হওয়ার চেয়ে সুন্দর জীবনের অধিকারী হতে চেয়েছি। সেলিব্রিটি হওয়া, বিখ্যাত হওয়া কিংবা সম্মাননা পাওয়ার জন্য আমি ফিল্ড হাসপাতালের কাজের সাথে যুক্ত হইনি। সুন্দর জীবনবোধের অংশ হিসেবে ফিল্ড হাসপাতালের উদ্যোক্তা হিসেবে আমার যুক্ত হওয়া।’

র‌্যাংকস এফসি’র সিইও তানভীর শাহরিয়ার রিমন বলেন, ‘কোভিড হিরোদের নিয়ে বলতে গেলে আমাদের শ্রদ্ধেয় আজাদ তালুকদার, ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া, ওসি মহসিনদের কথা বলতে হয়। আমি কোভিড হিরো হওয়ার মত কিছু করিনি। তারপরও আমাকে এই সম্মাননা দেওয়ার জন্য আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি৷ এই সম্মাননা আমাকে ভবিষ্যতে আরো ভালো কিছু করতে অনুপ্রেরণা যোগাবে।’

নগর গোয়েন্দা পুলিশের এডিসি শাহ মুহাম্মদ আব্দুর রউফ বলেন, ‘লকডাউন চলাকালীন সময়ে পুলিশ যখন সবাইকে ঘরে রাখতে চেষ্টা করছিল, তখন খেটে খাওয়া মানুষেরা কষ্ট পাচ্ছিলেন। সে সময় এসব খেটে খাওয়া মানুষের মধ্যে ২৪ হাজার পরিবারকে আমরা সহায়তা করার চেষ্টা করেছি। এটা আমাদের বড় একটি অর্জন বলা যায়। কি করতে পেরেছি তা জানি না, তবে মানুষের কষ্ট কিছুটা হলেও কমানোর প্রচেষ্টা করেছি।’

মহিউদ্দিন মাসুমের সঞ্চালনায় সম্মাননা অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামের কোভিড হিরো হিসেবে আজাদ তালুকদার, ড. বিদ্যুৎ বড়ুয়া, এডভোকেট রেহানা বেগম রানু, তানভীর শাহরিয়ার রিমন, আলহাজ্ব শামসুল হক ফাউন্ডেশন, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন লায়ন্স ক্লাব, গাওসিয়া কমিটি, আল-মানহিল কল্যাণ ফাউন্ডেশন, কর্ণফুলী ফাউন্ডেশনের সৈয়দ জালালউদ্দিন আহমেদ রুম্মান, অক্সিজেন ফর লাইফ ফাউন্ডেশনের রাকিব উদ্দিনকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।

এছাড়াও চেইঞ্জ মেকার অব চট্টগ্রামের সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয় মঞ্জুরুল হক মঞ্জু, আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য আরশাদুল আলম বাচ্চু, অসীম কুমার দাশ, দৃষ্টি চট্টগ্রামকে। কর্পোরেট কোভিড কন্ট্রিবিউটর হিসেবে ইস্পাহানি গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজকে সম্মাননা দেওয়া হয়।

‘হিরো ইন সার্ভিস’ হিসেবে নগর গোয়েন্দা পুলিশের এডিসি শাহ মুহাম্মদ আব্দুর রউফ, সাংবাদিক নেতা সাইদুল ইসলাম, ডবলমুরিং থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন, বাকলিয়া থানার ওসি রুহুল আমিন ও এসআই মৃণাল মজুমদারকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।

সামাজিক সংগঠন এবিসি’র আয়োজনে এ অনুষ্ঠানের সহ-আয়োজক লাইফ ফর লাইফ ও ওমেন্স কন্সেপ্ট।