করোনায় জীবন উৎসর্গ করলেন বাংলাদেশ পুলিশের আরও এক সম্মুখযোদ্ধা কনস্টেবল মোহাম্মদ সাহেব আলী (৫৭)। তিনি চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের ইপিজেড থানাধীন নিউমুরিং পুলিশ ফাঁড়িতে কর্মরত ছিলেন। তিনি ১৯৮৩ সালের ৮ আগস্ট বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন।

বিজ্ঞাপন

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, দুই কন্যাসহ বহু আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তিনি চাঁদপুর জেলার পুরান আদালত পাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মরহুম রঞ্জন আলী পাটোয়ারী।

বাংলাদেশ পুলিশের ব্যবস্থাপনায় মরদেহ মরহুমের গ্রামের বাড়িতে পাঠানো হয়েছে। সেখানে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে জানাজা শেষে মরদেহ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

আইজিপির শোকঃ
ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ (আইজিপি), বাংলাদেশ ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) কনস্টেবল মোহাম্মদ সাহেব আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

আইজিপি এক শোক বার্তায় বলেন, করোনাযুদ্ধে প্রথম সারির যোদ্ধা হিসেবে বাংলাদেশ পুলিশ একজন গর্বিত সদস্যকে হারালো।

তিনি মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।