সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি : সীতাকুণ্ডে এক শিক্ষক পরিবারের সম্পত্তি গিলে খেতে চায় ভূমিদস্যু চক্রের সদস্যরা। তাদের হাত থেকে বাঁচতে ভুক্তভোগি শিক্ষক ও সংশ্লিষ্টরা আদালতের স্মরণাপন্ন হলেও আইন-আদালত না মেনে প্রভাব খাটিয়ে কখনো জোরপূর্বক গাছ কেটে, কখনো পুকুরের মাটি কেটে নেওয়াসহ ঐসব জায়গা জবর দখলে রাখতে মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে দখলদাররা।

বিজ্ঞাপন

সর্বশেষ এসব বিষয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেও সুফল না পাওয়ায় বুধবার সীতাকুণ্ড প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগি উপজেলার দক্ষিণ রহমতনগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক লক্ষন চন্দ্র দে।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, তার বাড়ি পৌরসভার দক্ষিণ মহাদেবপুর ৬নং ওয়ার্ডে। সেখানে প্রতিবেশি মৃত ব্রজবাশী দে’র ছেলে বাবুল চন্দ্র দে, মৃত সাধন চন্দ্র দে’র ছেলে গোবিন্দ চন্দ্র দে, বাবুল চন্দ্র দে’র ছেলে বিষ্ণুপদ দে এবং নিতাই চন্দ্র দে’র সাথে তাদের দীর্ঘদিন সীমানা নিয়ে বিরোধ চলছিলো। এ বিরোধ নিষ্পত্তির লক্ষে তারা চট্টগ্রাম যুগ্ন জেলা জজ আদালত এবং এডিএম আদালতে মামলাও দায়ের করেছেন। এতে আদালত স্থিতাবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দিলেও এসব মামলায় ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিপক্ষগন জোরপূর্বক লক্ষন চন্দ্র গংদের দখলীয় জায়গা থেকে পুকুরের মাটি ও গাছপালা কেটে নিয়ে যায়। বাধ্য হয়ে সীতাকুণ্ড থানায় এ বিষয়ে অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তবে পুলিশ চলে গেলে তারা আবারো কাজ শুরু করে। এতে তাদের সম্পত্তি জবর দখলের আশংকা করছেন ভুক্তভোগিরা।

তাই এ বিষয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষের নজরদারি কামনা করছেন লক্ষন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন তার চাচা যদু চন্দ্র দে ও চাচাতো ভাই চন্দন দে।

২৪ ঘণ্টা/দুলু