লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক দিয়ে লকডাউনেও থেমে নেই ইয়াবা পাচার। লোহাগাড়ায় চুনতি ফরেষ্ট রেঞ্জ কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে অভিযান চালিয়ে ৬ ইয়াবা কারবারীকে আটকের পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে থানা পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

এ সময় তাদের কাছ থেকে ১০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার এবং পাচার কাজে ব্যবহৃত ১টি প্রাইভেট কার ও ১টি মাইক্রোবাস জব্দ করা হয়েছে।

বুধবার (১৪ এপ্রিল) বিকেলে তাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে মঙ্গলবার রাতে অভিযান চালিয়ে ইয়াবাসহ তাদেরকে আটক করা হয়। লোহাগাড়া থানার ওসি জাকির হোসাইন মাহমুদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অভিযানে আটককৃতরা হল- কক্সবাজার সদরের ইসলামাবাদ এলাকার মৃত আলী মিয়ার পুত্র আজিম উদ্দিন (৪৫), কক্সবাজার সদর উপজেলার চৌধুরী পাড়ার নুরুল আবছারের পুত্র নুরুজ্জামান আসিফ (২০), পটুয়াখালী জেলা সদরের বড় বিঘাই এলাকার মন্নান প্যাদার পুত্র বশির প্যাদা (৪২), বগুড়া জেলার শেরপুরের মরিচা এলাকার জাহাঙ্গীর আলমের পুত্র মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম (২৫), সিরাজগঞ্জ জেলা সদরের তিলাকুলি এলাকার মুকুল হোসেনের পুত্র সেলিম হোসেন (৪০), সিরাজগঞ্জের কমরখন্দ এলাকার আবদুস সালামের পুত্র সবুজ সরকার (৩২)।

লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) জাকের হোসাইন মাহমুদ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার রাতে এসআই গোলাম কিবরিয়ার নেতৃত্বে থানা পুলিশের একটি টিম চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চুনতি ফরেস্ট রেঞ্জ কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে চট্টগ্রাম অভিমুখী একটি প্রাইভেট কারে তল্লাশি চালিয়ে আজিম, আসিফ ও বশির প্যাদার কাছ থেকে ৫ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং একই স্থানে চট্টগ্রাম অভিমুখী একটি মাইক্রোবাসে তল্লাশি চালিয়ে জাহাঙ্গীর, সেলিম ও সবুজের কাছ থেকে ৫ হাজার পিস ইয়াবাসহ মোট ১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক কারবারীকে আটক করা হয়।

আটকের পর তাদের বিরুদ্ধে থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক দুটি মামলা রুজুর পর ১৪ এপ্রিল দুপুরে চট্টগ্রাম আদালতে সোপর্দ করা হলে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে একইদিন বিকেলে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন।

২৪ ঘণ্টা/আজাদ