আইএমএফকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের জবাব

 বাণিজ্য ডেস্ক |  বুধবার, নভেম্বর ২৪, ২০২১ |  ১২:৩৬ অপরাহ্ণ
24ghonta-google-news

সম্প্রতি আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) তাদের এক পর্যবেক্ষণে বলেছে, বাংলাদেশ ব্যাংক নন-লিকুইড সম্পদ বিবেচনায় নিয়ে রিজার্ভ বেশি দেখাচ্ছে। এরই জবাবে আইএমএফকে চিঠি দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের দেওয়া চিঠিতে বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক মানদণ্ড অনুসরণ করেই সব সময় রিজার্ভের হিসাব করে থাকে বাংলাদেশ। এখানে কোনো ধরনের অনিয়ম বা ভুল হওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

24ghonta-google-news

এ ছাড়াও কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলেছে, বিদেশি মুদ্রার রিজার্ভ একটুও বাড়িয়ে দেখানো হয়নি। সঠিক হিসাবই দেখানো হয়েছে।

আইএমএফকে দেওয়া চিঠিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানায়, আন্তর্জাতিকভাবে প্রচলিত রীতি মেনে দীর্ঘদিন ধরে একই পদ্ধতিতে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের হিসাব করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে রিজার্ভ বেশি দেখানোর কোনো সুযোগ নেই।

আইএমএফের পর্যবেক্ষণে, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে রপ্তানি উন্নয়ন তহবিলে (ইডিএফ) জোগান দেওয়া ৬ বিলিয়ন ডলার ও সোনালী ব্যাংকের মাধ্যমে পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষকে দেওয়া ৬৪ কোটি ডলারকে নন-লিকুইড সম্পদ মনে করা হয়েছে।

এর জবাবে দেওয়া চিঠিতে বাংলাদেশ ব্যাংক জানায়, রিজার্ভের নিট ও গ্রস আলাদা হিসাব হয়। নিট হিসাব থেকে ইডিএফ ও পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষকে দেওয়া ঋণ বাদ যায়। আর ১৯৮৯ সাল থেকে রপ্তানি উন্নয়ন তহবিলে জোগান দেওয়া অর্থ রিজার্ভের গ্রস হিসাবে দেখানো হচ্ছে।

ব্যাংক থেকে আরও বলা হয়, চলমান পদ্ধতি নিয়ে আইএমএফ বা অন্য কোনো সংস্থা এতোদিন প্রশ্ন তোলেনি। এ ছাড়া করোনার কারণে অন্য সব দেশের মতো অর্থনীতিকে সহায়তার জন্য ইডিএফ তহবিলের আকার বাড়ানো হয়েছে।

এন-কে

24ghonta-google-news
24ghonta-google-news