ফটিকছড়ির আনসার ভিডিপি ও নির্বাচন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

  |  শুক্রবার, মে ১৩, ২০২২ |  ৫:৪২ অপরাহ্ণ
24ghonta-google-news

চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম ও সদ্য বিদায়ী নির্বাচন কর্মকর্তা হুমায়ুন কবীরের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে জরিনা (৪৭) নামের এক গৃহকর্মী।

বৃহস্পতিবার (১২ মে) ফটিকছড়ি থানায় মামলাটি দায়ের হয়।

মামলার বিবরণে জানা যায়, উপজেলা পরিষদের দক্ষিণ পাশের একটি ভবনে ব্যাচেলর হিসেবে বসবাস করতো নির্বাচন কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির ও আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম। সে বাসায় গৃহকর্তীর কাজ করতো জরিনা। দীর্ঘদিন কাজ করার সুবাদে ২ কর্মকর্তার সাথে জরিনার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক হয়। একপর্যায়ে সরল বিশ্বাসে বাসায় এলে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে জরিনাকে। পরে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে দুই কর্মকর্তা। একপর্যায়ে বিষয়টি জানাজানি হলে জরিনা প্রথমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দেয়। বিষয়টি ইউএনও’র ক্ষমতাবহির্ভূত হওয়ায় আইনীভাবে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পরামর্শ দেন জরিনাকে। পরে জরিনা ফটিকছড়ি থানায় গিয়ে মামলা দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাব্বির রাহমান সানি বলেন, আমার কাছে জরিনা অভিযোগ নিয়ে এসেছিল। বিষয়টি সেনসেটিভ হওয়ায় এবং আমার ক্ষমতার বাহিরে হওয়ায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য জরিনাকে পরামর্শ দিয়েছি।

এ ব্যাপারে ফটিকছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাসুদ ইবনে আনোয়ার বলেন, উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা ও সদ্য বিদায়ী নির্বাচন কর্মকর্তা হুমায়ুন কবীরের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

এ ব্যাপারে আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা সাঈদুল ইসলাম বলেন, আমাকে ষড়যন্ত্রমূলক একটি মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। আমি ডায়বেটিস এর রোগী শারীরিক ভাবেও অক্ষম। আমাকে যে অভিযোগটি করা হচ্ছে সেটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

এ ব্যাপারে ফটিকছড়ি থেকে সদ্য বিধায়ী নির্বাচন কর্মকর্তা ও বর্তমানে রামগড়ে কর্মরত হুমায়ুন কবির বলেন, মহিলাটি খারাপ। এ মহিলাকে দিয়ে আমাকে ফাঁসানো হয়েছে। আমি এর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

24ghonta-google-news
24ghonta-google-news