লক্ষ্মীপুরে বাসে ধর্ষণচেষ্টা, চট্টগ্রামে আসামি গ্রেপ্তার

 ২৪ ঘন্টা নিউজ ডেস্ক |  সোমবার, জুলাই ৪, ২০২২ |  ১২:১৪ অপরাহ্ণ
লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে বাসে এক গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টা মামলার প্রধান আসামী এমরান হোসেনকে চট্টগ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এরপর তাকে কারাগারে প্রেরণ করে রামগঞ্জ থানা পুলিশ। রোববার (৩ জুলাই) বেলা ৩টার দিকে ওই আসামীকে লক্ষ্মীপুর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। এর আগে শনিবার (২ জুলাই) রাত ১টার দিকে তাকে চট্টগ্রামের ডাবলমুরিং থানা এলাকার একটি নির্মাণাধীন ভবন থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত এমরান রামগঞ্জ পৌরসভার কাজীরখীল গ্রামের আখন্দ বাড়ির বেলাল হোসেনের ছেলে। রামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদুল হক জানায়, গত ৩ জুন এক গৃহবধূ চাটখিল থেকে নোয়াখালীর উদ্দেশ্যে যাওয়ার পরিবর্তে ভুলে রামগঞ্জগামী জননী বাসে উঠেন। পরে রামগঞ্জ বাস স্ট্যান্ডে আসলে তিনি বাসের সুপার ভাইজারকে বিষয়টি বলেন। পরে সুপারভাইজার তাকে চট্টগ্রামগামী নীলাচল বাসে বসতে বলেন। এ সুযোগে বাসের সহকারী আজাদ হোসেন ও এমরান হোসেনসহ ৩ জন ওই গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় তার চিৎকারে বাজারের নৈশপ্রহরী মো. শাহজাহান ছুটে আসলে আজাদ ছাড়া অন্য দুইজন পালিয়ে যায়। একপর্যায়ে আশপাশের লোকজনও এগিয়ে আসে। হঠাৎ নৈশপ্রহরী শাহজাহানের বুকে ব্যাথা উঠলে হাসপাতাল নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বাস সহকারী আজাদকে আটক করে। পরে গৃহবধূ বাদী হয়ে আজাদ ও এমরানসহ ৩ জনের নামে রামগঞ্জ থানায় ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় মামলা দায়ের করেন। পরদিন আজাদকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ। এদিকে প্রায় ১ মাস পলাতক থাকার পর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রামগঞ্জ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে এমরানকে গ্রেপ্তার করে বলে জানান ওসি।
24ghonta-google-news

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে বাসে এক গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টা মামলার প্রধান আসামী এমরান হোসেনকে চট্টগ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এরপর তাকে কারাগারে প্রেরণ করে রামগঞ্জ থানা পুলিশ।

রোববার (৩ জুলাই) বেলা ৩টার দিকে ওই আসামীকে লক্ষ্মীপুর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। এর আগে শনিবার (২ জুলাই) রাত ১টার দিকে তাকে চট্টগ্রামের ডাবলমুরিং থানা এলাকার একটি নির্মাণাধীন ভবন থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত এমরান রামগঞ্জ পৌরসভার কাজীরখীল গ্রামের আখন্দ বাড়ির বেলাল হোসেনের ছেলে।

রামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদুল হক জানায়, গত ৩ জুন এক গৃহবধূ চাটখিল থেকে নোয়াখালীর উদ্দেশ্যে যাওয়ার পরিবর্তে ভুলে রামগঞ্জগামী জননী বাসে উঠেন। পরে রামগঞ্জ বাস স্ট্যান্ডে আসলে তিনি বাসের সুপার ভাইজারকে বিষয়টি বলেন। পরে সুপারভাইজার তাকে চট্টগ্রামগামী নীলাচল বাসে বসতে বলেন। এ সুযোগে বাসের সহকারী আজাদ হোসেন ও এমরান হোসেনসহ ৩ জন ওই গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় তার চিৎকারে বাজারের নৈশপ্রহরী মো. শাহজাহান ছুটে আসলে আজাদ ছাড়া অন্য দুইজন পালিয়ে যায়।

একপর্যায়ে আশপাশের লোকজনও এগিয়ে আসে। হঠাৎ নৈশপ্রহরী শাহজাহানের বুকে ব্যাথা উঠলে হাসপাতাল নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বাস সহকারী আজাদকে আটক করে। পরে গৃহবধূ বাদী হয়ে আজাদ ও এমরানসহ ৩ জনের নামে রামগঞ্জ থানায় ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় মামলা দায়ের করেন। পরদিন আজাদকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

এদিকে প্রায় ১ মাস পলাতক থাকার পর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রামগঞ্জ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে এমরানকে গ্রেপ্তার করে বলে জানান ওসি।

এন-কে

24ghonta-google-news
24ghonta-google-news